Breaking News

করোনা আক্রান্তদের পাশে ‘শেখ হাসিনা’ অক্সিজেন সেবায় ছাত্রলীগ

পাবনার ৯টি উপজেলার মধ্যে করোনা শনাক্তের হার ও সংখ্যা সবচেয়ে কম ছিল ফরিদপুর উপজেলায়। গত ১৫ মাসে এই উপজেলায় মাত্র ৩৫ থেকে ৪০ জন করোনা রোগী ছিল। কিন্তু গত এক মাসেই তা বেড়ে প্রায় ১৪০ জনে পৌঁছেছে।

 

বর্তমানে করোনা আক্রান্ত প্রায় ৭০ জন হাসপাতাল ও বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। অধিকাংশ আক্রান্ত ব্যক্তি নানা রকম অসুস্থতায় ভুগছেন। এ অবস্থায় শ্বাসকষ্টের রোগীদের বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা দিতে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি প্রকৌশলী আমিনুল ইসলাম মুরাদ ‘শেখ হাসিনা’ অক্সিজেন সেবা চালু করেছে।

 

মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) সকালে উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাদের উপস্থিতিতে দলীয় কার্যালয়ে অক্সিজেন সেবা প্রদান কার্যক্রম শুরু করা হয়। প্রথম দিনে ছাত্রলীগ সভাপতি মুরাদ কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী সঙ্গে নিয়ে করোনা আক্রান্ত শ্বাসকষ্টে ভোগা পৌর শহরের বিনগর বাজারে এক বয়স্ক নারীকে, বিএল বাড়ি ইউনিয়নের দেওভোগ গ্রামের এক ব্যবসায়ীকে ও পাচুরিয়া বাড়ি গ্রামের এক দরিদ্র ব্যক্তিকে অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দেন।

 

এসময় তারা ওইসব এলাকার মানুষকে মোবাইল নম্বর দিয়ে কারো করোনা আক্রান্ত হয়ে শ্বাসকষ্ট হলে উপজেলা ছাত্রলীগের সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য প্রচারণা চালান।

ছাত্রলীগ সভাপতি মুরাদের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে ফরিদপুর বাজারের ব্যবসায়ী মনসুর আলী বলেন, করোনা পরিস্থিতি খারাপ হয়ে যাওয়ায় সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ মহা দুশ্চিন্তায় আছে। বিশেষ করে আক্রান্ত ব্যক্তিদের পরিবারের লোকজন বেশি অসহায় বোধ করছেন। এ অবস্থায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের পাশে দাঁড়িয়ে ছাত্রলীগ মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন। আমরা চাই এভাবে সবাই সবার পাশে দাঁড়িয়ে এই দুর্যোগ মোকাবেলা করি।

 

উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি প্রকৌশলী আমিনুল ইসলাম মুরাদ বলেন, ফরিদপুর উপজেলা করোনা আক্রান্তের সংখ্যা খুব কম ছিল। কিন্তু হঠাৎ করেই মারাত্মক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এতে সংশ্লিষ্ট সবাই হিমশিম খেয়ে যাচ্ছে। তাই মানুষের দুঃসময়ে ছাত্রলীগের একজন সদস্য হিসেবে মানুষের পাশে দাঁড়ানো কর্তব্য মনে করছি। এই মহামারি মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশক্রমে ছাত্রলীগ সর্বদা মাঠে থাকবে।

 

 

aro porun:

করোনা সংক্রমণ মোকাবেলায় সরকার উল্টো পথে হাঁটছে বলে দাবি করছে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি। পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে বলেছেন, কঠোর লকডাউনের মধ্যেই করোনা সংক্রমণ ও মৃ,ত্যু যখন ভ,য়ানক ঊ,র্ধ্বগতিতে তখন বাস্তবে লকডাউন তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত পুরোপুরি আ,ত্মঘা,তী ও বি,পজ্জনক। সরকারের এ সিদ্ধান্ত পরিস্থিতিকে আরো শোচনীয় করে তোলার আ,শঙ্কা তৈরি করেছে।

 

বিবৃতিতে তিনি বলেন, সর্বাত্মক লকডাউনের পর স্বাস্থ্যবিষয়ক বিশেষজ্ঞ ও গবেষকদের মতামত ও সুপারিশ অগ্রাহ্য করে ১৫ জুলাই থেকে অপরিকল্পিতভাবে সবকিছু খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তে দেশের জনগণ আরো বি,পদগ্,রস্ত হবে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। শারীরিক ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পরিবর্তে উল্টো আগামী কদিন সামাজিক মেলামেশার মধ্য দিয়ে গোটা বাংলাদেশই করোনার হটস্পটে পরিণত হবে। যা মানুষের প্রা,ণহা,নির ঝুঁ,কি আ,রো বা,ড়িয়ে তুলবে।

About admin

Check Also

চালক প্রাণ দিয়েও ডাকাতদের কবল থেকে রক্ষা করতে পারলেন না বাস

গাইবান্ধা জেলার সীমানা চম্পাগঞ্জ এলাকায় ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে হানিফ পরিবহনের একটি নৈশকোচে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। এ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.