Breaking News

বিয়ে দেওয়ার নামে ভ’য়ঙ্কর প্র’তারণার ফাঁ’দ, চ’ক্রের দুই সদস্য গ্রে’প্তার!

চট্টগ্রামে ঘটক ও পাত্রী সেmজে অসংখ্য মানুষকে প্রতারণার ফাঁ,দে ফে,লার অ,ভিযোগে এক নারী ও একজন পুরুষকে গ্রে,প্তার করেছে পুলিশ। গতকাল ভোরে চট্টগ্রামের সহকারী পুলিশ সুপার (রাউজান রাঙ্গুনিয়া সার্কেল) মো. আনোয়ার হোসেন শামীম’র নেতৃত্বে জেলার রাউজান উপজেলাধীন গচ্ছি নয়া হাট এলাকায় ঝ,টিকা অ,ভিযান চালিয়ে তাদেরকে আ,টক করা হয়।

 

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, রাউজান উপজেলার গচ্ছি নিবাসী মৃ,ত মাওলানা মো. হারুন-এর ছেলে ওকার উদ্দিন ওরফে আরিফ (৩৬) এবং তার স্ত্রী সেলিনা আক্তার ওরফে শিরিন আক্তার ওরফে শেলি (৩২)সহ একটি সংঘব,দ্ধ প্র,তারক চ,ক্র দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন ধনাঢ্য ব্যক্তিকে টার্গেট করে সুন্দরী মেয়ে বিয়ে করানোর প্র,লোভন দে,খিয়ে তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন কৌশলে বিপুল পরিমাণ টাকা হা,তিয়ে নিচ্ছিল।

 

একজন প্রবাসী ভু,ক্তভোগী এই চ,ক্রের কাছে প্রায় সাড়ে তিন লাখ টাকা হারানোর পর গত ১৬ জুন এ বিষয়ে রাউজান থানায় একটি মা,মলা দায়ের করেন।

সে অনুযায়ী গতকাল ভো,রে অ,ভিযুক্ত চ,ক্রের মূল হোতা স্বামী-স্ত্রীকে গ্রে,প্তার করে পুলিশ। মধ্যরাত হতে ভোর পর্যন্ত টানা এ পুলিশি অ,ভিযানে মোবাইল ডি,ভাইসসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় অনুস,ন্ধান চালিয়ে তাদের বি,পুল প্র,তারণার ত,থ্যপ্,রমাণও সংগ্রহ করা হয়। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন এসআই শাহাদাত এবং এসআই অনুপমসহ রাউজান থানা পুলিশের একটি টিম।

 

গ্রে,প্তারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বামী-স্ত্রী দু’জনই নিজেদের প্র,তারণার কথা স্বীকার করে নেয়। এসময় উপস্থিত পুলিশ কর্মকর্তাদের জিজ্ঞাসাবাদে তারা তাদের প্র,তারণার অভিনব কৌশলের কথাও প্রকাশ করে।

 

পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রথমে স্বামী ওকার উদ্দিন তার এক সহযোগীকে নিয়ে বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে ঘুরে ডি,,ভোর্সড বা স্ত্রী মা,রা গেছে এমন বি,ত্তশালী মানুষ, বিশেষ করে বিদেশ ফেরত ও ধনাঢ্য মধ্যবয়সী ব্যক্তিদের টার্গেট করতেন।

 

তারপর কৌশলে তাদের সাথে পরিচিত হয়ে ঘনিষ্টতার একপর্যায়ে টার্গেট ব্যক্তিদেরকে জানাতেন যে, তাদের হাতে সুন্দরী ও বড়লোক বাবার মেয়ে পাত্রীর সন্ধান রয়েছে এবং চাইলে তারা পাত্রী দেখানো এবং বিয়ের উদ্যোগ নিতে পারেন। টার্গেট রাজি হলে প্র,তারকরা তাদেরকে  বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে গিয়ে বেশকিছু পাত্রী দেখাতেন এবং কৌশলে জেনে নিতেন কোন পাত্রীকে সবচেয়ে বেশি পছন্দ হয়েছে।

 

কয়েকদিনের মধ্যেই টার্গেটের মোবাইলে সেই পছন্দকৃত পাত্রীর পরিচয় দিয়ে কল করতেন প্র,তারক চ,ক্রের সদস্য সেলিনা (ওকার উদ্দিনের স্ত্রী)। দুয়েকদিন অ,ন্তর,ঙ্গ কথা চালিয়ে যাওয়ার পর বলতেন, তিনি তার মায়ের মোবাইল থেকে কথা বলেন, তাই সবসময় কথা বলা সম্ভব হয় না এবং জরুরিভিত্তিতে তার একটি মোবাইল ফোন কেনা প্রয়োজন। কয়েকদিন পর বলতেন যে, তিনি অসুস্থ, ডাক্তারের কাছে যেতে হবে, বিভিন্ন ব্য,য়বহুল টেস্ট করতে হবে, টাকা দরকার।

 

এভাবে বিভিন্ন অজুহাতে বিপুল টাকা হা,তিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি দুজনের অ,ন্তর,ঙ্গ আ,লাপ রে,কর্ডও করে রাখা হতো। অনেকবার এভাবে টাকা দেওয়ার পর ভি,কটিমরা যখন বুঝতে পারতেন যে, তিনি প্র,তারিত হয়েছেন, তখন তাদেরকে হু,মকি দেওয়া হত যে, যদি তারা এই বিষয়ে পুলিশ কিংবা অন্য কাউকে কিছু বলে, তাহলে তার আ,ত্মীয়স্ব,জনের কাছে রে,কর্ডকৃত অ,ন্তর,ঙ্গ ক,থোপক,থন পাঠিয়ে দেওয়া হবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চো,খকে ফাঁ,কি দেওয়ার জন্য তারা মোবাইল কলের বদলে অনলাইনভিত্তিক বিভিন্ন অ্যাপের মাধ্যমে যাবতীয় যোগাযোগ ও আলাপচারিতা সম্পন্ন করতেন।

 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, প্র,তারক চক্রের মূল হোতা ওকার উদ্দিন নিজেও ২০০১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ দিন দুবাই প্রবাসী ছিলেন। কিন্তু তাতেও ভাগ্য ফেরাতে ব্যর্থ হয়ে ২০১৪ তে দেশে ফিরে চট্টগ্রামের বোয়ালখালির মেয়ে সেলিনা আক্তারকে বিয়ে করে স্বামী-স্ত্রী এবং অন্য কয়েকজন সহযোগীকে সঙ্গে নিয়ে গড়ে তোলেন অভিনব এই প্র,তারণার ফাঁ,দ।

 

এ প্রসঙ্গে অ,ভিযানের নেতৃত্বে থাকা চট্টগ্রামের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. আনোয়ার হোসেন শামীম বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই আমরা এই চ,ক্রটির গতিবিধি মনিটর করে আসছিলাম। সম্প্রতি এ বিষয়ে  একটি মামলা হওয়ার পর গতকাল রাতে অ,ভিযান চালিয়ে আমরা অ,ভিযুক্ত স্বামী-স্ত্রীকে গ্রে,প্তার করি। এই চক্রে জড়িত অন্যদেরও শিগগিরই আইনের আওতায় আনা হবে।

 

 

 

 

স্বাধীনতার আগের রানী ভিক্টোরিয়ার (Queen Victoria) ছবি থাকা রুপোর ২ টাকার কয়েনের মূল্য নির্ধারিত হয়েছে ২ লক্ষ টাকা। এছাড়াও জর্জ কিং এম্পেররের (George King Emperor) ছবি যুক্ত ১৯১৮ সালের ব্রিটিশ কয়েন এর মূল্য বর্তমান বাজারে ৯ লক্ষ টাকা পর্যন্ত।

 

•কিভাবে কয়েন বিক্রি করবেন?

আপনার কাছে যদি এই উপরিউক্ত কয়েনগুলি থেকে থাকে তবে ব্যবসা-বাণিজ্য ও ই-কমার্স সাইট (E-commerce site) ক্যুইকার ওয়েবসাইটে (Quicker website) আপনি এগুলোকে বিক্রি করতে পারেন। ক্রেতা এবং বিক্রেতার মধ্যে দরদামের মাধ্যমে কয়েনের মূল্য নির্ধারণ হবে। আপনার চাহিদা অনুযায়ী মূল্য পেলে খুব সহজেই এই কয়েন গুলো বিক্রি করতে পারবেন আপনি। এবং তার সাথে পেয়ে যাবেন লক্ষ লক্ষ টাকা।

 

কয়েনটি বিক্রি করতে হলে আপনাকে প্রথমেই ক্যুইকার ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজের নাম নথিভুক্ত করতে হবে, এরপর আপনার কাছে থাকা ওই কয়েনের ফটো তুলে তা ওই সাইটে আপলোড করতে হবে সেখানেই পেমেন্ট ও ডেলিভারির শর্ত মেনেই ২ টাকার পুরনো কয়েন বাছতে হবে৷

About admin

Check Also

চালক প্রাণ দিয়েও ডাকাতদের কবল থেকে রক্ষা করতে পারলেন না বাস

গাইবান্ধা জেলার সীমানা চম্পাগঞ্জ এলাকায় ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে হানিফ পরিবহনের একটি নৈশকোচে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। এ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.