Breaking News

যেখানেই যান ‘মোহাম্মদ সালাহ’র’ হাতে থাকে ‘পবিত্র কোরআন’

বর্তমান বিশ্ব ফুটবলের উজ্জ্বল নক্ষত্র মোহাম্মদ সালাহ। মিসর জাতীয় দলের ফরোয়ার্ড ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব লিভারপুলে খেলেন তিনি। ২০১৭/১৮ মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন সালাহ। আর মুসলিম এই ফুটবলার সম্পর্কে নানা বিস্ময়কর তথ্য জানা গেছে। আপনি কি জানেন, নিয়মিত কোরআন পড়া তার অভ্যাস?

 

মিশরীয় মোহম্মদ সালাহর জনপ্রিয়তা ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী। ফুটবলবিশ্বে কোনো মুসলিম খেলোয়াড় এত দ্রুত আলোড়ন সৃষ্টি করতে পারেননি। মাঠে ও মাঠের বাইরে দুই জায়গায় সমানতালে তুমুল জনপ্রিয় ফরোয়ার্ড। প্রতিপক্ষের জালে বল জড়িয়েই মহান আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সেজদাহে অবনত হন, দুই হাত তুলে মোনাজাত করেন। খেলা শুরুর আগেও দোয়া করেন।

 

বিবিসির এক সংবাদে জানা যায়, সালাহ একজন নিবেদিত মুসলিম। তাই ধর্মচর্চায় কোনো রাখঢাক করেন না। নানা ধরনের ধর্মীয় আচার পালন করতে দেখা যায় তাকে। মাঠে হরহামেশা এর প্রমাণ মেলে। প্রতিপক্ষের জালে বল জড়িয়েই মহান আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সেজদাহে অবনত হন, দুই হাত তুলে মোনাজাত করেন। খেলা শুরুর আগেও দোয়া করেন। যেখানে যান সঙ্গে রাখেন পবিত্র কোরআন।

 

যেখানে যান সঙ্গে রাখেন পবিত্র কোরআন। এরই মধ্যে ম্যাচ খেলতে বিমানে ভ্রমণকালে সালাহর কোরআন পড়ার ছবিপ্রকাশ পেয়েছে। প্রকাশিত হয়েছে কোনো জায়গায় যাওয়ার সময় তার হাতে পবিত্র ধর্মগ্রন্থটির ছবিও। অবসর পেলেই কোরআন পড়েন তিনি। সেটি কোনো বিমান ভ্রমণ বা যাতায়াত বা অন্য কাজের ফাঁকেই হোক।

 

সালাহ জানান, আমার শরীরে কোনো ট্যাটুর চিহ্ন নেই। আমি কখনও হেয়ারস্টাইল পরিবর্তন করি না। আমি জানিও না কীভাবে নাচতে হয়। এভাবেই খেলা চালিয়ে যেতে চাই। অবশ্য এসব তথ্য আগেই ফাঁস হয়। তবু সেসব নিয়ে বিশ্ব ফুটবলপাড়ায় আলোচনা এখন তুঙ্গে।

 

মিশরীয় এই তারকা ফুটবলার ১৯৯২ সালের ১৫ জুন মিশরের বাসাউনের নাগরিগ শহরে জন্মগ্রহণ করেন এই তারকার। ক্লাব ক্যারিয়ারে লিভারপুল এবং জাতীয় দল মিশরের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন সালাহ। বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা ফুটবলার সালাহ তার গতি, ড্রিবলিং এবং ফিনিশিংয়ের জন্য বিখ্যাত। ক্লাব ক্যারিয়ারে ফিওরেন্টিনা, চেলসি, এফসি বাসেল, রোমা এবং লিভারপুলের মতো বড় বড় ক্লাবের হয়ে মাঠ মাতানোর অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর।

 

এছাড়া জাতীয় দলকেও বিশ্বকাপ এবং ইউরোর মতো আসরে নেতৃত্বও দিয়েছেন তিনি। ব্যক্তিগত পুরস্কার জয়ে বেশ সুনাম রয়েছে সালাহর। আফ্রিকার বর্ষসেরা খেলোয়াড়, প্রিমিয়ার লীগের সেরা খেলোয়াড়, গোল্ডেন বুটসহ আরও অনেক পুরস্কার জিতেছেন তিনি।

 

লিভারপুলের হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপাও জিতেছেন এই তারকা। এছাড়া আরও একবার হয়েছেন রানার্সআপ। ২০১৭ সালের আফ্রিকান কাপ অব নেশনসের মিশরের হয়ে রানার্সআপও হয়েছিলেন।

 

 

 

স’রকারি চাকরিজীবীর ৭ লাখ টাকা যেভাবে হাতিয়ে নিলেন তামান্নাতামান্না আক্তার। ব’য়স ২৭ বছর। ১১ বছর আগে জামালপুরের ফারুক হোসেনের স’ঙ্গে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। তাদের সংসারে দশ বছর ব’য়সী এক ছেলে রয়েছে।

 

তারপরও তামান্না অবিবা’হিতা, সম্ভ্রান্ত পরিবারের পাত্রী সেজে এখন পর্যন্ত এক ডজনেরও বেশি ব্যক্তির কাছ থেকে বিয়ে করে বিদেশ নেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বিপুল টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। তার এই প্র’তারণার কথা জানেন না স্বা’মী ফারুক এবং একমাত্র ছেলে।

 

সর্বশেষ একজন স’রকারি উচ্চপদস্থ চাকরিজীবীর স’ঙ্গে প্র’তারণা করে ৭ লাখ টাকার বেশি হাতিয়ে নেয়। পু’লিশের অ’পরাধ ত’দন্ত বিভাগ-সিআইডির কাছে তার বি’রুদ্ধে অসংখ্য ভু’ক্তভোগী লিখিত অভিযোগ করেছেন।

 

প্র’তারণার শি’কার ব্যক্তিদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে সম্প্রতি সিআইডি ভুয়া পাত্র দেখার ফাঁদ পেতে একটি রেস্টুরেন্ট থেকে তাকে গ্রে’প্তার করে।সিআইডি সূত্র জানায়, তামান্নার গ্রামের বাড়ি জামালপুর।

 

যদিও প্রথমে সে তার বাড়ি সম্প’র্কে ভু’ল ঠিকানা হিসেবে কিশোরগঞ্জ জানায়। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন। তার স্বা’মী রাজধানীর একটি বেস’রকারি ও’ষুধ কোম্পানিতে চাকরি করেন। স্বা’মী এবং ছেলেকে নিয়ে রামপুরা ব্লক-ই ভাড়া বাসায় থাকেন।

 

অর্থের লোভে স্বা’মীর চোখ ফাঁকি দিয়ে তামান্না প্রায় এক বছর আগে চ’ক্রের মূ’ল হোতা সাদিয়া জান্নাতের স’ঙ্গে অ’পকর্মে যোগ দেন। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, তামান্না খুব ধূর্ত প্রকৃতির। এক বছর আগে পার্কে হাঁটতে গিয়ে সাদিয়ার স’ঙ্গে তার পরিচয় হয়।

About admin

Check Also

আজানের ধ্বনিতে মুগ্ধ হয়ে হিন্দুধর্ম ত্যাগ করে মুসলমান হলেন যুবক

ইসলাম শিক্ষা দেয় যে আল্লাহ দয়ালু, করুনাময়, এক ও অদ্বিতীয়। ইসলাম মানব জাতিকে সঠিক পথ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *