Breaking News

শ্বশুর বাড়ির থেকে উপহার না আসায় অন্তঃস’ত্ত্বা স্ত্রীকে কু’পিয়ে হ’ত্যা!!

সিলেটের ওসমানীনগরে স্ত্রীর বাবার বাড়ি থেকে পাঠানো ইফতারিতে সাজানো থালা না থাকা এবং ঈদে নতুন কাপড় না দেওয়ায় স্বামী-শাশুড়ির নি’র্যা’তনে ৭ মাসের অন্,তঃস’ত্ত্বা গৃহবধূর মৃ’ত্যুর অ’ভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী আরশ আলী ও শাশুড়ি মিনারা বেগমকে আট’ক করেছে পুলিশ।

 

শনিবার (৮ মে) দুপুরে ওসমানীগর থা’না পুলিশ উপজেলার উসমানপুর ইউনিয়নের তাহিরপুর গ্রামের মৃ’ত ইছন আলীর বাড়ি থেকে শরিফা বেগমের মর’দে’হ উ’দ্ধার করে।

 

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ৯ মাস আগে উপজেলার উসমানপুর ইউনিয়নের তাহিরপুর গ্রামের মৃ’ত ইছন আলীর ছেলে আরশ আলীর সঙ্গে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় নবীগঞ্জ উপজেলার পুটিয়া গ্রামের শাকিম উল্যার ছোট মেয়ে শরিফার। বিয়ের কিছু দিন পর যৌ’তুকসহ নানা অজুহাতে স্বামী-শাশুড়ি নি’র্যা’তন শুরু করেন শরিফার ওপর। নিজে অন্তঃস’ত্ত্বা থাকায় তাদের নি’র্যা’তন সহ্য করে গ’র্ভের সন্তানের আলোর মুখ দেখাতে তাদের সব নি’র্যা’তন সহ্য করেই স্বামীর বাড়িতে পড়ে থাকেন শরিফা। চলতি রমজানে তার বাপের বাড়ি থেকে ইফতারি দিতে দেরি করায় এবং ইফতারির সঙ্গে স্বামীর জন্য আলাদাভাবে সাজানো থালা না দেওয়ায় শরিফার ওপর নি’র্যা’তনের মাত্রা আরও বেড়ে যায়।

 

এছাড়া শুক্রবার (৭ মে) সন্ধ্যায় শরিফার বাপের বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়ির লোকজনের জন্য ঈদের নতুন কাপড় না আসাকে কেন্দ্র করে শাশুড়ির সঙ্গে কথা কা’টাকাটির জের ধরে আরশ আলী ও মিনারা বেগম মিলে মা’রপিট করেন শরিফাকে। বি’ষয়টি মোবাইল ফোনে শরিফা তার ভাইকে জানায় এবং পরে কথা বলবেন বলে ফোন রেখে দেন। এমতাবস্থায় সেহরির সময়ে শরিফার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি বন্ধ পান তার ভাই-বোনেরা। এরপর শনিবার শরিফার বড় বোন শিপন আক্তার শরিফার স্বামী শাশুড়ির জন্য নতুন কাপড় নিয়ে আরশ আলীর বাড়ির (বোনের বাড়ি) উদ্দেশে রওয়ানা দেন। পথিমধ্যে শরিফার ভাশুরের মাধ্যমে খবর পান তার বোন খুবই অ’সুস্থ। এর কিছুক্ষণের মধ্যে আবার খবর আসে শরিফা আ’ত্মহ’ত্যা করেছে।

 

খবর পেয়ে শনিবার দুপুরে থা’না পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শরিফার মর’দে’হ উ’দ্ধার করে ময়নাতদ’ন্তের জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর’্গে পাঠায়।

শরিফার বড় বোন শিপন আক্তার ও ভাই মিনার হোসেন বলেন, বিয়ের পর থেকেই আমা’র বোনের ওপর তার স্বামী ও শাশুড়ি যৌ’তুকসহ নানা অজুহাতে নি’র্যা’তন করতো। তাদের নি’র্যা’তনের কারণে আমর’া তাকে নিয়ে যেতে চাইলেও গ’র্ভের সন্তানের কথা চিন্তা করে আমা’র বোন সব কিছু নীরবে সহ্য করে যেত। আমর’া গরিব মানুষ লকডাউনের কারণে অভাব অনটনে চলতি রমজান মাসে ইফতারি পাঠাতে দেরি এবং আরশ আলীর জন্য আলাদা করে সাজানো থালা না দেওয়ায় তার স্বামী ও শাশুড়ি শরিফাকে নানাভাবে নি’র্যা’তন করে। সর্বশেষ নতুন কাপড় পাঠাতে দেরি করায় তারা আমা’র বোনকে দুনিয়া থেকে বিদায় করে দিয়ে তার গ’র্ভের সন্তানটিকেও আলোর মুখ দেখতে দিলো না। বোন হ’ত্যার বিচার দাবি করেন তারা।

 

ওসমানীগর থা’নার ভারপ্রা’প্ত কর্মক’র্তা (ওসি) শ্যামল বনিক বলেন, খবর পেয়ে মর’দে’হ উ’দ্ধার করে মর’্গে পাঠানো হয়েছে। লা’শের গায়ে একাধিক আঘা’তের চিহ্ন রয়েছে। নি’হতের স্বামী ও শাশুড়িকে আট’ক করা হয়েছে। এ ঘটনায় সংশ্লি’ষ্ট আইনে মাম’লার প্রস্তুতি চলছে।

About admin

Check Also

ছে’লেদের চাইতে মে’য়েরাই বৃ’দ্ধ পিতা-মাতার সেবাযত্ন বেশি করেন!!

স’রকারি চাকুরে মতিন সাহেবের ৫ কন্যা। জ্যোতি, রতি, নীতি, মিতি আর ইতি। ছোট মেয়ের নাম …

Leave a Reply

Your email address will not be published.